Central-President-&-Secretary-General-2

রবিবার (১৬ এপ্রিল’১৭) ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি জি.এম. রুহুল আমীন, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শাইখ ফজলুল করীম মারুফ ও সেক্রেটারি জেনারেল শেখ মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম দাওয়াতি পক্ষ উপলক্ষে এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৪৬ বছর পার হলেও জনগণের স্বাধীনতার স্বপ্ন আজও স্বপ্নই থেকে গেল। স্বাধীনতার পর বারবার নেতার পরিবর্তন হলেও জনগণের কাক্সিখত মুক্তি আসেনি। এর জন্য দায়ি মানবরচিত মতবাদ ও শাসনতন্ত্র। মানবরচিত শাসনতন্ত্র পরিবর্তন ছাড়া মানুষের স্থায়ী কল্যাণ, শান্তি, মুক্তি, নিরাপত্তা ও ন্যায় বিচার সম্ভব নয়। অতএব ন্যায় ও সাম্যের সমাজ প্রতিষ্ঠা ও সমৃদ্ধশালী দেশ গঠনে ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, আজ আমাদের জাতীয় উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ করতে জাতির মাঝে বিভাজন সৃষ্টির অপচেষ্ট চলছে। কিছু গণবিচ্ছিন্ন শেকড়হীন বাম আমাদের জতীয় ঐক্যে ফাটল ধরানোর চেষ্টা করছে। এদের ব্যাপারে সরকারকে ব্যবস্থা নিতে হবে।

বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, এদেশের হাজার বছরের ইতিহাস-ঐতিহ্য ও সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের মূল্যবোধ বিরোধী অপসংস্কৃতি এ জাতির ওপর চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজসহ দেশবাসিকে গণআন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

নেতৃবৃন্দ ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন কর্তৃক ঘোষিত দাওয়াতি পক্ষে দেশের সর্বস্তরের জনগণের সামনে ইসলামের সুমহান আদর্শ তুলে ধরে জনগণের হৃদয় জয় করে ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিকে গণদাবিতে পরিণত করার লক্ষে ব্যাপকভাবে দাওয়াতি কাজ করার জন্য সংগঠনের সর্বস্তরের জনশক্তির প্রতি আহবান জানান।

বার্তা প্রেরক : মুহাম্মাদ ইলিয়াস হাসান
কেন্দ্রীয় তথ্য-গবেষণা ও প্রচার সম্পাদক
তারিখ : ১৬/০৪/২০১৭
http://www.iscabd.org/?p=3138
Website: www.iscabd.org
Online Library: www.iscalibrary.com
Email: iscabd91@gmail.com
Facebook: www.facebook.com/iscabd91
YouTube: www.youtube.com/c/iscabd
Google Plus: www.google.com/+ISCABD

Dawati-Maser-Kormosuchi

Dawati-Maser-Kormosuchi

দেশের সচেতন শিক্ষার্থীদের প্রতি দাওয়াতি পক্ষের আহবান
[১৬-৩০ এপ্রিল ২০১৭]

১. জাতীয় নেতৃত্ব তৈরি এবং ছাত্র রাজনীতির শুদ্ধতা নিশ্চিতকল্পে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

২. বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সকল ছাত্র সংগঠনের শান্তিপূর্ণ, সুশৃঙ্খল, স্বাভাবিক রাজনীতি চর্চার পরিবেশ অবারিত করতে হবে।

৩. বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আবাসন ও পরিবহণ সংকট নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে ও গবেষণা খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করে উদ্ভাবনী সক্ষমতার বিকাশ ঘটাতে হবে।

৪. জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালসহ সকল সাধারণ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলাম শিক্ষা, আরবি সাহিত্য ও ইসলামের ইতিহাস বিভাগ চালু করতে হবে।

৫. প্রশ্নপত্র ফাঁস ও নকল সরবরাহকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে এবং বিজ্ঞানভিত্তিক কর্মমূখী ও সর্বজনীন ইসলামী শিক্ষানীতি প্রণয়ন করতে হবে।

৬. ভর্তি ও চাকুরির ক্ষেত্রে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ বন্ধ করতে হবে এবং স্বকীয়তা বজায় রেখে কওমি মাদরাসা সনদের স্বীকৃতির ঘোষণা বাস্তবায়নে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।

৭. দেশ ও ইসলামের শত্রুদের ক্রীড়নক জঙ্গিবাদের উৎস উদঘাটন করে জনাতংক ও ইসলামভীতি সৃষ্টির অপতৎপরতা সমূলে উৎখাত করতে হবে।

৮. সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপচেষ্টাকারীদের চিহ্নিত করতে হবে।

৯. হাজার বছর ধরে লালিত ও চর্চিত সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যবিরোধী মূর্তি ও ভাস্কর্য স্থাপন, অশ্লীল ও বিকৃত রুচির চলচ্চিত্র আমদানী, নির্মাণ ও প্রদর্শন বন্ধ করতে হবে।

১০. নিকট অতীতে সংঘটিত সকল হত্যাকাণ্ড, ধর্ষণ, গুম, অপহরণ ও মানবাধিকার লক্সঘনের বিরুদ্ধে এবং জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে দুর্বার সংগ্রাম গড়ে তুলতে হবে।

১১. মানবরচিত শাসনতন্ত্র পরিবর্তন ছাড়া মানুষের স্থায়ী কল্যাণ, শান্তি, মুক্তি, নিরাপত্তা ও ন্যায়বিচার সম্ভব নয়। অতএব ন্যায় ও সাম্যের সমাজ প্রতিষ্ঠায় ইসলামী সংবিধান প্রতিষ্ঠার আওয়াজ উচ্চকিত করুন।

দেশপ্রেমী বন্ধুগণ!
* দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ও যুবসমাজের উন্নত ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে প্রয়োজন নীতিভ্রষ্ট এই অপশাসনের অবসান। এজন্য প্রয়োজন প্রাজ্ঞ নেতৃত্ব, সুচিন্তিত কর্মসূচির অধীনে দক্ষ কর্মী বাহিনীর ধারাবাহিক আন্দোলন।

* ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন বিগত ২৫ বছর ধরে দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও মূল্যবোধকে ধারণ করে ইসলামের পূর্ণাঙ্গ অনুশাসন মেনে ইসলাম প্রতিষ্ঠার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে।

আপনার আত্মব্যক্তিক উন্নয়নের মাধ্যমে দেশ-জাতির সামগ্রিক উন্নয়নে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এ যোগ দিন।